ঢাকা - সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২০ : ১৪ আশ্বিন, ১৪২৭

সাত সতর্কতা ঠেকাতে পারে করোনাভাইরাস

নিউজ ডেস্ক
জানুয়ারি ২৬, ২০২০ ১১:২১
৫৭১ বার পঠিত

দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস। দিনকে দিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এশিয়ার পর ইউরোপ ও আমেরিকা অঞ্চলে আক্রান্ত রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে। চীনসহ ১২টি দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১৩০০ ছাড়িয়েছে। নিউমনিয়া সদৃশ্য ভাইরাসের কবলে শনিবার পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪১ জনের। আশার কথা এখনো বাংলাদেশে আক্রান্ত রোগী সনাক্ত হয়নি। কিন্তু সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ভাইরাসটি ঠেকাতে প্রস্তুতি নিয়েছে সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগ।

চীন থেকে অন্যান্য দেশে ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাস যে কোনও বাংলাদেশেও ঢুকতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে। প্রাণঘাতি এ ভাইরাস থেকে বাঁচতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎকরা ৭টি পরামর্শ দিয়েছেন। পরামর্শের মধ্যে আছে- ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক ব্যবহার করা, গণপরিবহন এড়িয়ে চলা, বেশি বেশি ফলের রস ও পানি পান করা, ঘরে ফেরার পরই হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে দু’হাত ভালো করে ধুয়ে নেয়া, কিছু খাওয়া কিংবা রান্নার আগে তা ভালো করে ধুয়ে নেয়া, ডিম কিংবা মাংস রান্নার সময় ভালো করে সেদ্ধ করা এবং ময়লা কাপড় যতো দ্রুত সম্ভব ধুয়ে ফেলা।

জানা যায়, প্রস্তুতির অংশ হিসেবে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরগুলোসহ অন্যান্য প্রবেশপথে করোনাভাইরাস স্ক্রিনিং (শনাক্ত) কার্যক্রম শুরু কররেছে স্বাস্থ্য বিভাগ । প্রশিক্ষণ দেয়া শুরু হয়েছে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদের। জনসচেতনতা বাড়াতে এ সংক্রান্ত প্রচার কার্যক্রমও হাতে নেয়া হয়েছে। শাহজালাল বিমানবন্দরসহ দেশের ৭টি প্রবেশপথে ডিজিটাল থার্মাল স্ক্যানারের মাধ্যমে আক্রান্ত বিভিন্ন দেশ থেকে আগত রোগীদের স্পর্শ না করে অসুস্থতা পর্যবেক্ষণ করা যাবে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে বিমানবন্দরের আক্রান্তকে আলাদাকরণ ওয়ার্ড। আগাম সতর্কতামূলক প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসেবে দেশের বিভিন্ন স্থল, নৌ ও বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন এবং আইএইচআর স্বাস্থ্য ডেস্কগুলোতে বিশেষ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। জোরদার করা হয়েছে নজরদারি কার্যক্রম। এসবের জন্য কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালকে রেফারেল হিসেবে নির্দিষ্ট করে ওয়ার্ড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রয়োজনীয় যোগাযোগের জন্য প্রস্তুত রয়েছে সিডিসি ও আইইডিসিআরের (রোগতত্ত্ব, রোগয়িন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠান) ৪টি হটলাইন -০১৯৩৭-১১০০১১, ০১৯৩৭-০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪ এবং ০১৯২৭৭১১৭৮৫। এ ব্যাপারে আইইডিসিআর’র পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানিয়েছেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রস্তুত রয়েছে বাংলাদেশ।

সম্পাদনা: এমআই



মন্তব্য