ঢাকা - নভেম্বর ২০, ২০১৯ : ৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬

আন্দোলনে শীর্ষ ক্রিকেটাররা

নিউজ ডেস্ক
অক্টোবর ২১, ২০১৯ ১৯:৫১
৭৬ বার পঠিত

বেতন-ভাতাসহ জাতীয় লিগ, ঘরোয়া লিগ, জিমের সুবিধা, বাজে আম্পায়ারিংসহ নানা ইস্যুতে ধর্মঘট করছেন ক্রিকেটাররা। ঘরোয়া ক্রিকেটের মান উন্নয়ন ও বেতন-ভাতা বাড়ানোসহ ১১ দফা দাবি জানিয়ে আন্দোলনে নেমেছেন দেশের শীর্ষ ক্রিকেটাররা।

দাবি না মানা পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিজেদের বিরত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন সাকিব আল হাসান। সোমবার সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে মিরপুরে বিসিবির একাডেমি মাঠে জড়ো হন খেলোয়াড়রা। সেখানে বিকেলে ৩টায় সংবাদ সম্মেলন করেন দেশের শীর্ষ ক্রিকেটাররা। সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন সাকিব-তামিমরা।

সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘গত কয়েক বছর ধরে জানেন প্রিমিয়ার লিগের পরিস্থিতি কি। এটা নিয়ে কম বেশি সবাই অসন্তুষ্ট। এখানে পারিশ্রমিকের একটা মানদণ্ড বেঁধে দেয়া হয়েছে। খেলোয়াড়দের অনেক লিমিটেশন দেয়া হয়েছে। আগে যেমন ছিল, তেমনটা নেই। খেলোয়াড়রা আগে বাছাই করতে পারতো, কোন দলে খেলবে, পারিশ্রমিক কেমন হবে। আমাদের দাবি হলো আগের মতো যেন প্রিমিয়ার লিগটা ফিরে পাই।’

তামিম ইকবাল বলেন, ‘বিদেশি কোচ অনেক টাকা দিয়ে নিয়ে আসা হয়। দেশীয় কোচ ভালো করার পরও আর তাকে নিয়ে আর কাজ করা হয় না। কিন্তু আমরা বিদেশিদের বেশি পারিশ্রমিক দিয়ে নিয়ে আসি। নিজের দেশের দিকে খেয়াল করি না। আমরা শুধু ক্রিকেটারদের কথা বলছি না, সকল ক্রিকেট স্টাফদের কথা বলছি।’

সম্মেলনের শেষের দিকে আবারও সাংবাদিকদের সামনে এসে সাকিব বলেন, ‘যে দাবিগুলো করা হয়েছে, তা না মানা পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেট বন্ধ থাকবে।’এসময় উপস্থিত ছিলেন মুশফিকুর রহিম, রুবেল হোসেন, তাসকিন রহমান, এনামুল হক বিজয়, নাঈম ইসলাম, নুরুল হাসান সোহানসহ অনেক ক্রিকেটাররা।

ক্রিকেটারদের কার বেতন কত?

‘এ প্লাস’ শ্রেণির ক্রিকেটারদের মাসিক বেতন হলো ৪ লাখ টাকা, ‘এ’ শ্রেণিতে ৩ লাখ, ‘বি’ শ্রেণির ক্রিকেটাররা পান ২ লাখ টাকা করে। ‘রুকি’ শ্রেণির ক্রিকেটারদের সম্মানী এক লাখ টাকা।

কে কোন শ্রেণিতে:

‘এ প্লাস’ শ্রেণিতে আছেন-মাশরাফি, সাকিব, তামিম, মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ। ‘এ’ শ্রেণিতে ইমরুল কায়েস, মোস্তাফিজুর রহমান ও রুবেল হোসেন আছেন।‘বি’ ক্যাটাগরিতে আছেন- মুমিনুল হক, লিটন দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম। ক্যাটাগরি রুকিতে আছেন- আবু হায়দার, আবু জায়েদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, নাঈম হাসান, খালেদ আহমেদ।



মন্তব্য