ঢাকা - সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯ : ৪ আশ্বিন, ১৪২৬

মানবদেহে ঢুকছে প্লাস্টিক কণা

নিউজ ডেস্ক
সেপ্টেম্বর ০৫, ২০১৯ ১১:৩২
৪৪ বার পঠিত

মানবদেহে প্রতি বছরে ৭৩ হাজার মাইক্রোপ্লাস্টিক (অতি ক্ষুদ্র প্লাস্টিক কণা) পেটে ঢুকছে। দৈনিক মানুষের শরীরে ঢুকছে গড়ে ২০০টি মাইক্রোপ্লাস্টিক। এ হিসেবে বছরে ৭৩ হাজার প্লাস্টিক কণা পেটে যায়। প্লাস্টিকের ক্ষুদ্র কণার সবচেয়ে বড় উৎস বোতলজাত পানি। প্রতিটি মাইক্রোপ্লাস্টিকের আয়তন পাঁচ মিলিমিটারের চেয়েও ছোট (০.২ ইঞ্চি)। বোতলজাত পানি ছাড়াও সামুদ্রিক মাছের পেটেও পাওয়া যাচ্ছে প্রচুর প্লাস্টিক কণা। গবেষকেরা ইউরোপ, আমেরিকা, এশিয়ার মানুষের ১০ গ্রাম মলের মধ্যে গড়ে ২০টি মাইক্রোপ্লাস্টিক পেয়েছেন।

গবেষণা দলের প্রধান অস্ট্রিয়ার মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটি ড. ফিলিপ স্কোয়াবল ডেইলি মেইলকে (গবেষণাটি ডেইলি মেইলে ২ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত হয়েছে।) বলেন, এ ধরনের গবেষণা এটাই প্রথম। আমরা এর আগে যে সন্দেহ করেছিলাম তাই প্রমাণিত হয়েছে। মানুষের পেটে অতি ক্ষুদ্র প্লাস্টিক কণা ঢুকছে। প্লাস্টিক বর্জ্য, সিনথেটিক ফাইবার, ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য সুরক্ষার বস্তু থেকে ক্ষুদ্র প্লাস্টিক কণা হচ্ছে।

ড. স্কোয়াবল বললেন, ক্ষুদ্র প্লাস্টিক কণার কারণে মানুষের মধ্যে কী ঝুঁকি তৈরি করতে পারে তা এখনো অজানা। কিন্তু এগুলো থেকে বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ তৈরি হতে পারে এবং এগুলোর মধ্যে ক্ষুদ্রতর কণাগুলো রক্ত প্রবাহে ঢুকে যেতে পারে। এতে করে মানুষের গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টিনাল রোগ হতে পারে। ক্ষুদ্রতর প্লাস্টিক কণাগুলো রক্ত প্রবাহে, লিম্ফেটিক সিস্টেমে এবং এমনকি লিভারেও ঢুকে যেতে পারে।



মন্তব্য