ঢাকা - সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯ : ৩ আশ্বিন, ১৪২৬

বাল্টিক সাগরে ন্যাটোর মহড়া পর্যবেক্ষণে রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ

নিউজ ডেস্ক
জুন ১২, ২০১৯ ১২:৪১
৪৫ বার পঠিত

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের ১৮টি দেশের প্রায় ৮,৬০০ সেনা জার্মানির বাল্টিক সাগরের কিয়েল বন্দরে শনিবার বার্ষিক বাল্টিক অপারেশনস (বাল্টপস) নামে নৌমহড়া শুরু করছে। মহড়ার ওপর নজর রাখতে বাল্টিক সাগরে নিজের নৌবাহিনীর দ্রুতগামী যুদ্ধজাহাজগুলো মোতায়েন করেছে রাশিয়া।

রাশিয়ার দূরপশ্চিম এলাকা কালিনিনগ্রাদের আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সূত্র উদ্ধৃত করে দেশটির সংবাদ সংস্থা তাস জানিয়েছে, ‘স্টোইকি ও বোইকি কার্ভেটসের পাশাপাশি ক্ষুদ্র ক্ষেপণাস্ত্রবাহী জাহাজগুলো ন্যাটোর পরিচালিত মহড়াকে পর্যবেক্ষণ করবে। এ ছাড়া প্রাথমিক নিরীক্ষণের জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসও স্থাপন করা হবে’।

বাল্টপস মহড়ায় নৌ, বিমান ও স্থলবাহিনীর পাশাপাশি প্রায় ৫০টি যুদ্ধজাহাজ, সাবমেরিন ও ৪০ যুদ্ধবিমান অংশ নিচ্ছে। ২১ জুন পর্যন্ত চলার মহড়াটিতে রয়েছে সমুদ্রের তলদেশে থাকা খনি ও সাবমেরিন অনুসন্ধান ও ধ্বংস করা এবং শত্রু নৌবাহিনীর নৌযান থেকে পরিচালিত হামলা থেকে প্রতিরক্ষায় বিমানবাহিনী ও স্থল সৈন্যবাহিনীর ব্যবহারের কলাকৌশল।

বাল্টপস বাল্টিক অঞ্চলের প্রধান বার্ষিক সমুদ্রকেন্দ্রিক মহড়া যা ৪৭ বছর ধরে উত্তর ইউরোপের বৃহত্তম মহড়া হিসেবে চিহ্নিত হয়ে আসছে। মহড়াটিতে বেলজিয়াম, ডেনমার্ক, এস্তোনিয়া, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, লাটভিয়া, লিথুয়ানিয়া, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে, পোল্যান্ড, পর্তুগাল, রোমানিয়া, স্পেন, সুইডেন, তুরস্ক, ব্রিটেন ও যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা অংশগ্রহণ করছে। রাশিয়া আগে এই সামরিক মহড়ায় অংশ নিতো কিন্তু ২০১৪ সালে ক্রিমিয়াকে অবৈধভাবে সংযুক্ত করে নেয়া ও পূর্ব ইউক্রেনের অব্যাহত অস্থিতিশীলতার পর থেকে দেশটিকে আমন্ত্রণ জানানো হয় না।

মহড়ার অংশ হিসেবে নৌবাহিনী বাল্টিক সাগর অঞ্চলে বেশ কয়েকটি স্থানে অনুশীলন পরিচালনা করবে।

জার্মানির উয়েডেমে ন্যাটোর এয়ার অপারেশনস সেন্টার, বিমানবাহিনীর সব অপারেশন পরিচালনা করবে। যুদ্ধবিমান আকাশ প্রতিরক্ষা দিতে ও নজরদারি করতে নৌবাহিনীর সঙ্গে কাজ করবে। মহড়া শেষ হওয়ার পরে বেশির ভাগ জাহাজ কিয়েলে ফিরে আসবে। কেইলারভেনে নৌবাহিনীর প্যারেডে অংশ নেবে জার্মানি।

ডেইলি সাবাহ



মন্তব্য