ঢাকা - মে ২০, ২০১৯ : ৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬

ইরাক থেকে দূতাবাসের কিছু কর্মচারী সরিয়ে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

নিউজ ডেস্ক
মে ১৬, ২০১৯ ১১:০১
৬০ বার পঠিত

ইরাকের রাজধানী বাগদাদের মার্কিন দূতাবাস এবং ইরবিলের কনসুলেট থেকে কম গুরুত্বপূর্ণ কিছু কর্মচারী সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। দূতাবাস থেকে এক বিবৃতিতে এ কথা বলা হয়েছে। ইরান-সমর্থিত বাহিনীর কাছ থেকে হুমকি নিয়ে কয়েকবার উদ্বেগ প্রকাশের পর যুক্তরাষ্ট্র বুধবার এ পদক্ষেপ নিয়েছে। ইরাক ছাড়তে বলা হয়েছে ওই কর্মচারীদেরকে।

প্রাথমিকভাবে মার্কিন পররাষ্ট্র বিভাগ থেকে ইরাকে পোস্টিং পাওয়া ফুল-টাইম কূটনীতিকেরা এ নির্দেশের আওতায় পড়ছেন। তা ছাড়া এ নির্দেশের ফলে সাময়িকভাবে ইরাকে ভিসা কার্যক্রমও বন্ধ থাকবে বলে জানানো হয়েছে দূতাবাসের বিবৃতিতে। মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী ইরাকে মার্কিন সেনাদের ওপর ইরানের আসন্ন হুমকি নিয়ে ফের উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

বুধবার বাগদাদের মার্কিন দূতাবাস ও ইরবিলের মার্কিন কনসুলেট থেকে কর্মীদের ফিরে আসার নির্দেশ দেয় যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর। মার্কিন দূতাবাসের এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। কর্মীদেরকে যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফেরার পরামর্শ দিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এ দুই অফিসে স্বাভাবিক ভিসা সেবা সাময়িক বন্ধ থাকবে।’ তবে ঠিক কতজন কর্মীকে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে তা নিয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি।

মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, জরুরি কাজে নিয়োজিত না থাকা কর্মীদেরকে সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্তটি নেয়া হয়েছে নিরাপত্তাজনিত মূল্যায়নের ভিত্তিতে। তবে এর আওতায় ঠিক কতজন কর্মী দেশে ফিরবেন তা নিয়ে বিস্তারিত জানা যায়নি। ওই মুখপাত্র বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি কর্মী ও নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাটা আমাদের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারের বিষয়। সুরক্ষা দেয়ার সক্ষমতা নিয়ে ইরাকি নিরাপত্তাবাহিনীর প্রতি আমাদের আস্থা আছে। তবে এ হুমকি গুরুতর এবং আমরা ক্ষতির ঝুঁকি কমাতে চাই।’

রয়টার্স



মন্তব্য