ঢাকা - জুলাই ২১, ২০১৯ : ৫ শ্রাবণ, ১৪২৬

তেল স্থাপনায় হামলার পেছনে হাউছিরা: সৌদি আরব

নিউজ ডেস্ক
মে ১৬, ২০১৯ ১১:০১
১১৮ বার পঠিত

সৌদি আরবের দু’টি তেল শোধনাগারে ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে। সৌদি আরব মনে করে এ হামলার পেছনে রয়েছে ইরান সমর্থিত ইয়েমেনি হাউছি বিদ্রোহীরা। একইসাথে দেশটি একে কাপুরুষোচিত কর্মকাণ্ড হিসেবেও আখ্যায়িত করেছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে তেলবাহী সৌদি জাহাজে রহস্যময় হামলার দুই দিনের মাথায় এমন ঘটনা ঘটল। সৌদি আরবের তেল সমৃদ্ধ পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ থেকে লোহিত সাগরের তীরে অবস্থিত ইয়ানবু সমুদ্র বন্দরের দিকে যাওয়া একটি তেল লাইনে এ হামলা হয়। দেশটির জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল-ফালিহ সৌদি প্রেস এজেন্সিতে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে জানান, হামলায় অতি সামান্য ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তিনি বলেন, এই হামলা আবারো প্রমাণ করেছে যে আমাদের উচিত ইয়েমেনে ইরান সমর্থিত হুথি ‘সন্ত্রাসীদের’ বিরুদ্ধে যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়া।

প্রথমে হামলার কারণে আগুন লেগে গেলে সেটি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় কর্তৃপক্ষ। তবে পরে ওই পাইপলাইনটি সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ফালিহ বলেন, সাম্প্রতিককালে এ ধরনের হামলা শুধু সৌদি আরব নয়, সমগ্র পৃথিবীতে জ্বালানি সরবরাহ ও বিশ্ব অর্থনীতির জন্য হুমকি স্বরূপ। তিনি একইসাথে প্রতিশ্রুতি দেন যে, এসব হামলায় সৌদি আরবের তেল উৎপাদন বা রফতানি ব্যাহত হবে না। ইয়েমেনের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকারকে ফের ক্ষমতায় বসাতে চার বছর ধরে হাউছিদের বিরুদ্ধে লড়াই করছে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন একটি জোট বাহিনী। ইয়েমেনের এই যুদ্ধকে সৌদি আরব ও ইরানের ছায়াযুদ্ধ হিসেবে দেখা হয়। এর আগেও হাউছিরা সৌদি শহরগুলোতে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে; কিন্তু দু’টি সৌদি সূত্র রয়টার্সকে জানিয়েছে, এই প্রথমবারের মতো রাষ্ট্র পরিচালিত আরামকো কোম্পানির একটি স্থাপনায় ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে।

আরামকো জানিয়েছে, হামলার পর তারা পেট্রোলাইন নামে পরিচিত ইস্ট ওয়েস্ট পাইপলাইনটির অবস্থা খতিয়ে দেখার জন্য তা সাময়িকভাবে বন্ধ রেখেছে। এই পাইপলাইনটি দিয়ে প্রধানত সৌদি আরবের পূর্বাঞ্চলীয় তেলক্ষেত্রগুলো থেকে পশ্চিমাঞ্চলীয় মদিনা শহরের নিকটবর্তী ইয়ানবু বন্দরে অপরিশোধিত তেল পাঠানো হয়। সৌদি আরবের পাম্পিং স্টেশনে হামলা হয়েছে, এমন খবর ছড়ানোর সাথে সাথেই বিশ্ববাজারে তেলের মূল্য প্রায় এক থেকে দেড় শতাংশ বেড়ে যায়।

ইয়েমেনি বাহিনীর আক্রমণে ৯৭ হাউছি যোদ্ধা নিহত

ইয়েমেনের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকারের অনুগত বাহিনীর আক্রমণে বিদ্রোহী হাউছি গোষ্ঠীর ৯৭ যোদ্ধা নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সৌদি আরব। আল দালেয়া প্রদেশে চালানো ওই আক্রমণে ১২০ হাউছি যোদ্ধাকে বন্দী করা হয়েছে বলে সামরিক বাহিনীর উদ্ধৃতি দিয়ে বুধবার জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সৌদি টেলিভিশন আল আরাবিয়া।

আলজাজিরা ও রয়টার্স



মন্তব্য