ঢাকা - জুন ২৫, ২০১৯ : ১০ আষাঢ়, ১৪২৬

বেসামরিক হাইব্রিড বিমান তৈরি করছে যুক্তরাষ্ট্র

নিউজ ডেস্ক
এপ্রিল ১৬, ২০১৯ ১৩:০৭
৯০ বার পঠিত

বিশ্বের প্রথম বেসামরিক বিমান টিল-রোটর তৈরি করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ইতালির বিখ্যাত মহাকাশযান নির্মাতা কোম্পানি ‘লিওনার্দো হেলিকপ্টারস’ এটি প্রস্তুত করবে।

এর প্রথম মডেল এডব্লিউ-৬০৯ এর প্রস্তুত কাজ এ সপ্তাহ থেকেই শুরু হবে বলে জানিয়েছে কোম্পানিটি। সবকিছু ঠিক থাকলে ২০২০ সালের মধ্যে সেবা দানের মাধ্যমে এভিয়েশন এ্যাডমিনিস্ট্রেশন সারটিফিকেশন অর্জন করতে সক্ষম হবে বলেও আশা প্রকাশ করে এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান।

লিউনার্দো হেলিকপ্টারের ম্যানেজিং ডিরেক্টর জিয়ান পিয়েরো কাটিলো বলেন, ‘গত মাসে অ্যাটলান্টায় অনুষ্ঠিত হেলিকপ্টার এ্যাসোসিয়েশন ইন্টারন্যাশনাল শোতে প্রযুক্তির মহাসাফল্য হিসেবে ৬০৯ কে উপস্থাপন করা হয়।

টিল-রোটর আসলে কী?

এদের হোভারগুলো দেখতে হেলিকপ্টারের মতোই। কিন্তু এগুলো হেলিকপ্টারের চেয়ে দ্রুত ও বিমানের মতো গতি সম্পন্ন। পূর্বে শুধুমাত্র সামরিক বাহিনীর জন্য এটি ব্যবহারের অনুমতি ছিল।

কিন্তু এবারই প্রথম বেসামরিক মানুষের জন্য এটি প্রস্তুত করা হচ্ছে। জরুরি চিকিৎসা সেবা প্রদান, ঝুঁকিপূর্ণ অনুসন্ধানী অভিযান ও বাণিজ্যিক ভ্রমণ কাজে এটি ব্যবহার করার জন্য অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এটি দু’জন বৈমানিক ও ৯ জন যাত্রী বহন করতে সক্ষম। এই অনন্য শক্তি সম্পন্ন হাইব্রিড বিমানের প্রত্যেকটি পাখার শেষে টার্বোপ্রুপ প্রোপেলার ইঞ্জিন আছে। একটি ইঞ্জিনের সাথে আরেকটি এমনভাবে স্থাপন করা হয়েছে যা উপর-নিচ করার সময়, আবহাওয়া বিবেচনা করে হোভারিং করার সময়, অবতরণ করার সময়, উড্ডয়নের সময় কিংবা আকাশে চলার সময় স্থানচ্যুত হবে না।

লাগবে না কোনো বিমানবন্দর

এটি অবতরণ করতে বিমানবন্দরের কোনো প্রয়োজন হবে না। ফলে অঙ্গ অনুদান কাজে এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে। যেমন: এক হাজার মাইল দূরবর্তী কোনো হাসপাতালের ডোনারের কাছ থেকে হার্ট নিয়ে অন্য হাসপাতালে মুহূর্তের মধ্যেই পৌঁছে দিতে পারবে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ধনকুবের এটি কেনার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এমন দ্রুতগতি সম্পন্ন একটি যান প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন নিউ ইয়র্কের সাবেক মেয়র ও ধনকুবের মাইকেল ব্লুমবার্জ।

ব্লুমবার্জের মতো ধনকুবের ব্যক্তিরা টিল-রোটরে আরোহণ করে ৩০০ কিলোমিটারেরও বেশি গতি বেগে হাজার মাইল দূরের মিটিংস্থলে যোগদান করতে পারবেনমুহূর্তের মধ্যে। ৩ ঘন্টার মধ্যে এমন দূরত্বের নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছুতে সক্ষম হবে এটি।

লিউনার্দো বলছে, নতুন ধরনের এই বিমান তৈরি করতে নানা ধরেনের বাধা-বিপত্তির সম্মুক্ষীণ হতে হয়েছে। কিন্তু ফ্লাইট টেস্ট থেকে প্রতিনিয়ত ইতিবাচক সাড়া পাওয়ায় আমরা বেশ আশাবাদী। তাই প্রতিনিয়ত গুরুত্বপূর্ণ এবং অপরিহার্য উন্নয়ন করে যাচ্ছি।

মূল্য:

এডব্লিউ-৬০৯ এর মূল্য ২৫ মিলিয়ন ডলার বা দুই শ’ পঞ্চাশ লক্ষ টাকা হবে বলে আশা করছে কোম্পনিটি।

সূত্র: সিএনএন



মন্তব্য