ঢাকা - জুলাই ২৩, ২০১৯ : ৭ শ্রাবণ, ১৪২৬

নিউজিল্যান্ডে নিহত ৩ বাংলাদেশির পরিচয় মিলেছে

নিউজ ডেস্ক
মার্চ ১৬, ২০১৯ ০৯:০৪
১৭০ বার পঠিত

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় এখন পর্যন্ত ৪৯ জন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে তিন বাংলাদেশি রয়েছেন। নিহতরা হলেন- স্থানীয় লিঙ্কন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. আবদুস সামাদ। সানজিদা আকতার। আর অন্যজন হলেন হোসনে আরা পারভীন। মসজিদে হামলার ঘটনায় বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তাদের মধ্যে দুজনের অবস্থা গুরুতর।

এঁদের মধ্যে আবদুস সামাদের বাড়ি কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী উপজেলায়। তিনি নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় লিংকন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন। দুই বছর আগে বাড়িতে এসেছিলেন। তিনি পরিবারসহ নিউজিল্যান্ডে থাকতেন। সামাদ নাগেশ্বরী পৌরসভার মধুর হাইল্যা গ্রামের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা। তিনি মৃত জামাল উদ্দিনের ছেলে। ২০১৩ সাল থেকে সপরিবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরের হ্যাগলি পার্ক এলাকায় বসবাস করে আসছিলেন। আবদুস সামাদ তিন সন্তানের জনক। একসময় তিনি ময়মনসিংহে অবস্থিত বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়েরও শিক্ষক ছিলেন।

নিউজিল্যান্ডে মসজিদে বন্দুকধারীদের গুলির শব্দ শুনে পক্ষাঘাতগ্রস্ত ‘স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে’ নিহত হন সিলেটের হুসনে আরা পারভীন। তার স্বামী প্যারালাইসিসের রোগী ছিলেন। ঘটনার দিন শুক্রবার হওয়ায় জুমার নামাজ ছিল। তাই নামাজের আধঘণ্টা আগে ফরিদ উদ্দিন আহমদকে নিয়ে মসজিদে যান তিনি। স্বামীকে মসজিদে রেখে নারীদের মসজিদে চলে যান পারভীন। এর কিছু পর পর পুরুষদের মসজিদে গুলির শব্দ শুনতে পান তিনি। দ্রুত স্বামীকে দেখতে ছুটে যান। কিন্তু এটাই তার জন্য হয়ে যায় মর্মান্তিক ঘটনা। কারণ এসময় অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী তাকে গুলি করে। ফলে ঘটনাস্থলেই মারা যান পারভীন। পারভীন-ফরিদ দম্পতির একটি মেয়ে রয়েছে। ১৯৯৪ সালে পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে হয়। এর কয়েক বছর পর তারা নিউজিল্যান্ডে যান। ২০০৯ সালে তারা বাংলাদেশে এসেছিলেন।



মন্তব্য