ঢাকা - মার্চ ১৯, ২০১৯ : ৪ চৈত্র, ১৪২৫

হাত পা আছে যে গাড়ির

নিউজ ডেস্ক
জানুয়ারি ০৯, ২০১৯ ১৮:৩৪
৭৪ বার পঠিত

রাস্তার বাইরেও চলতে পারে এমন গাড়ি বের করেছে বেশ কয়েকটি কোম্পানি। এবার হুন্দাই কোম্পানি এমন এক ধরনের গাড়ি বাজারে আনছে, আক্ষরিক অর্থেই যার পা আছে এবং সেই পা দিয়ে উঁচু-নিচু বা বন্ধুর জায়গা পার হয়ে যেতে পারে। চলাচল করা ছাড়া গাড়িটি পায়ে ভর দিয়ে দাঁড়াতেও পারে।

সম্প্রতি লাস ভেগাসে অনুষ্ঠিত সিইএসের কোম্পানিটি তাদের এলিভেট নামের নতুন গাড়ির এ ধারণা প্রকাশ করে। এ গাড়িতে চাকা যেমন আছে, তেমনি চাকার সাথে পা-ও যুক্ত আছে। বন্ধুর জায়গা পার হওয়ার সময় গাড়িটি তার পা খুলে ওই জায়গা অতিক্রম করে। হুন্দাই কোম্পানি নিউইয়র্কের জন্য এমন একটি ট্যাক্সির নকশাও উন্মুক্ত করে, যেটি হুইল চেয়ার থেকে অনায়াসে যাত্রী তুলে আনতে পারবে।

হুন্দাইয়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং হুন্দাই ক্রেডলেরর প্রধান জন সুহ বলেন, কোনোস্থানে সুনামি বা ভূমিকম্প আঘাত হানলে বর্তমানে ব্যবহৃত উদ্ধারকারী গাড়িগুলো ধ্বংসস্তূপের আগেই থেমে যেতে বাধ্য হয়। সেখানেই তারা তাদের সেবা দিতে পারবে। দুর্ঘটনাস্থলের গভীরে গিয়ে উদ্ধারকাজ চালাতে হলে পায়ে হেঁটেই সেখানে যেতে হয়, গাড়িটি তাও করতে পারবে। জন সুহ বলেন, এলিভেট ওই সব স্থানেও চলতে পারে এবং যেখানে আবর্জনা বা কংক্রিট স্তূপ হয়ে যায় সেখানেও বেয়ে উঠতে পারে। জরুরি অবস্থার জন্য এ প্রযুক্তিটি খুবই উপযোগী।

বিশ্বব্যাপী যেসব ব্যক্তি হাঁটা চলা করতে অক্ষম, গাড়িতে উঠতে অসমর্থ হুন্দাই এলিভেট তাদের ঘরের সামনে থেকেই গাড়িতে তুলতে পারবে, মেঝের সমান হয়ে হুইল চেয়ারও সেখানে ঢোকাতে দেবে। এ গাড়িটি এসব দিক দিয়ে অনেক সুবিধাজনক। হুন্দাই জানায়, এলিভেট হচ্ছে প্রথম আলটিমেট মোবিলিটি ভেহিকেল (ইউএমভি), যাতে বৈদ্যুতিক গাড়ি ও রোবটের প্রযুক্তি সংযুক্ত করা হয়েছে। এর ফলে যেসব রাস্তায় সাধারণভাবে গাড়ি চলতে পারে না, সেসব জায়গাতেও এটি চলতে পারবে।

মড্যুলার ইভি প্ল্যাটফর্মের ওপর ভিত্তি করে নির্মিত এলিভেট বিশেষ পরিস্থিতিতে অন্য ডিজাইনের গাড়িতেও রূপান্তরিত হতে পারবে। এ গাড়ির রোবোটিক পাগুলোতে লাগানো চাকাগুলোকে পাঁচ ডিগ্রি পর্যন্ত ঘোরানো যাবে। এতে স্তন্যপায়ী ও সরীসৃপ উভয় ধরনের হাঁটার সক্ষমতা যোগ করা হয়েছে। ফলে এটি যেকোনো দিকে সরে যেতে সক্ষম। সাধারণভাবে চলার সময় এ গাড়ির পাগুলো ভাঁজ করে রাখা যায় এবং অন্য যেকোনো গাড়ির মতোই গতি নিয়ে চলতে সক্ষম। কিন্তু অন্য গাড়িগুলো এর মতো পাঁচ ফুট দেয়ালের ওপর আরোহণ করতে পারে না, পাঁচ ফুট ফাঁকা জায়গা পার হতে পারে না, বন্ধুর জায়গায় চলতে পারে না। পা-যুক্ত চাকা ব্যবহার করে গাড়ির হাঁটা, উঁচু স্থানে চড়া এবং গতি -এ গাড়িকে একটি ভিন্নমাত্রা দিয়েছে।

সানবার্গ-ফেরারের নকশা ম্যানেজার ডেভিড বায়রন এ গাড়ি সম্পর্কে বলেন, হুন্দাইয়ের সর্বশেষ ইভি টেকনোলজির সাথে রোবটের চড়ার শক্তি যুক্ত করে হুন্দাই এলিভেট নামের যে গাড়ি উদ্ভাবন করেছে, তা এমন জায়গা থেকে লোকদের তুলে আনতে পারবে, যেখানে আগে কোনো গাড়ি যায়নি। এ গাড়িটি যানবাহনের স্বাধীনতা সম্পর্কে আমাদের ধারণাকে পাল্টে দিয়েছে। কল্পনা করুন, রাস্তা থেকে ১০ ফুট দূরে তুষারে ঢেকে যাওয়া স্থানে একটি গাড়ি হেঁটে বা চড়ে পার হয়ে আসছে এবং আহত লোকদের প্রাণ বাঁচাচ্ছে। এটাই গাড়িটির গতিশীলতা ভবিষ্যৎ বলে মনে করা হচ্ছে।

সূত্র: স্কাই নিউজ



মন্তব্য