ঢাকা - নভেম্বর ২০, ২০১৮ : ৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

বল এখন সরকারের কোর্টে: ড. কামাল

নিউজ ডেস্ক
নভেম্বর ০৮, ২০১৮ ০৯:১৩
১৪৫ বার পঠিত

দ্বিতীয় দফা সংলাপ শেষে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, সংলাপের মাধ্যমে আমরা দাবি-দাওয়া উত্থাপন করেছি। আমরা চেয়েছি শান্তিপূর্ণ উপায়ে দাবি আদায় করতে। এখন বল প্রধানমন্ত্রীর কোর্টে। এরপর যা হবে তার দায়-দায়িত্ব সরকারের।

বুধবার সংলাপ শেষে গণভবন থেকে ফিরে ড. কামাল হোসেনের বেইলি রোডের বাসায় সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা।

ড. কামাল বলেন, ঐক্যফ্রন্ট সরকারকে প্রস্তাব দিয়েছে। এই প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সামনে সীমিত পরিসরে আরো আলোচনার দাবি জানানো হয়েছে।

ড. কামাল আরো বলেন, সারা দেশে হাজার হাজার নেতাকর্মীর নামে যেসব মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দেয়া হয়েছে, সেগুলো প্রত্যাহার ও ভবিষ্যতে আর কোনো গায়েবি হয়রানিমূলক মামলা ও ঐক্যফ্রন্ট নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হবে না বলে প্রধানমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্বাচনকালীন সরকার এবং নির্বাচন কমিশন পূর্ণগঠনের বিষয়ে আমরা প্রস্তাব করেছি। আলোচনা হয়েছে।

নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হলে ফ্রন্টের করণীয় কি হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কর্মসূচি ঘোষণা দেয়া আছে। বৃহস্পতিবার রাজশাহী অভিমুখে রোডমার্চ হবে। তফসিল ঘোষণা হলে নির্বাচন কমিশন অভিমুখে পদযাত্রা করবো।

এসময় নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আমরা তফসিল ঘোষণা না করতে বলেছি। তারপরও ঘোষণা হলে পুনঃতফসিল হতে পারে। তফসিল ঘোষণা হলেও আলোচনা চলতে পারে। আর ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচন পেছানোর প্রস্তাব দেয়নি। আমরা সংসদের মেয়াদ শেষের ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার প্রস্তাব দিয়েছি।

সংবাদ সম্মেলনে ছিলেন ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সুলতান মোহাম্মদ মনসুরসহ আরো অনেকে।

এর আগে বুধবার সকাল ১১টা থেকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী ও ১৪ দলের নেতাদের সঙ্গে দ্বিতীয় দফা সংলাপ করেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। ওই সংলাপে নেতৃত্ব দেন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন।



মন্তব্য