ঢাকা - জুন ১৯, ২০১৮ : ৪ আষাঢ়, ১৪২৫

‘বাংলাদেশের ৭ ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি প্রায় সাড়ে ৯ হাজার কোটি টাকা’

নিউজ ডেস্ক
ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০১৮ ১০:০৩
৯৪ বার পঠিত

বাংলাদেশের চারটি রাষ্ট্রায়ত্ত ও তিনটি বেসরকারি খাতের ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি প্রায় সাড়ে ৯ হাজার কোটি টাকা বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। সোমবার জাতীয় সংসদে নির্দলীয় সংসদ সদস্য মো. আবদুল মতিনের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান। রাষ্ট্রায়ত্ত চারটি ব্যাংক হচ্ছে- সোনালী, রূপালী, জনতা ও বেসিক ব্যাংক। আর বেসরকারি খাতের তিনটি ব্যাংক হচ্ছে কমার্স, ফারমার্স ও আইসিবি ইসলামি ব্যাংক।

অর্থমন্ত্রী বলেন, গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাষ্ট্রয়াত্ত ব্যাংকগুলোর মূলধন ঘাটতি রয়েছে সাত হাজার ৬২৬ কোটি ২৩ লাখ টাকা। আর বেসরকারি তিনটি ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি হচ্ছে এক হাজার ৭৯১ কোটি ২০ লাখ টাকা। রাষ্ট্রয়াত্ত ব্যাংকের মাঝে রূপালী ব্যাংকের ঘাটতি ৬৮৯ কোটি ৯০ লাখ টাকা, জনতা ব্যাংকের ঘাটতি এক হাজার ২৭২ কোটি ৯৩ লাখ টাকা, বেসিক ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি দুই হাজার ৫২২ কোটি ৯৯ লাখ টাকা। বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের ঘাটতি ২৩১ কোটি ৩১ লাখ টাকা, ফারমার্স ব্যাংকের ঘাটতি ৭৪কোটি ৭৬ লাখ টাকা আর আইসিবি ইসলামিক ব্যাংকের ঘাটতি এক হাজার ৪৮৫ কোটি ১৩ লাখ টাকা।

অর্থমন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোকে ২০০৫–২০০৬ অর্থবছর থেকে ২০১৬-২০১৭ অর্থবছর পর্যন্ত সরকার ১০ হাজার ২৭২ কোটি টাকার পুনঃমূলধনীকরণ সুবিধা দিয়েছে। যা ইতিমধ্যে ব্যাংকগুলোতে মূলধন হিসাবায়নে যুক্ত হয়েছে। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময়ে সরকারি মালিকানাধীন ব্যাংকে প্রভিশন ঘাটতি ছিল সাত হাজার ৫৬৭ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। এ সময়ে বেসরকারি ব্যাংকে উদ্বৃত্ত প্রভিশন রয়েছে এক হাজার ৭৬ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। সামগ্রিকভাবে মোট ঘাটতি প্রভিশনের পরিমাণ ছিল ছয় হাজার ৩৪৪ কোটি ৩৩ লাখ টাকা।



মন্তব্য