ঢাকা - ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮ : ২ পৌষ, ১৪২৫

`আমরা মারা যাচ্ছি, আর বড়রা কিছুই করছে না’

নিউজ ডেস্ক
ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৮ ০৯:১৬
১৭৮ বার পঠিত

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার পার্কল্যান্ডে স্কুলে বন্দুকধারীর হামলায় নিহত শিক্ষার্থীদের সহপাঠী ও স্বজনেরা আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনের দাবিতে আন্দোলন করছে। রোববার মারজরি স্টোনম্যান ডগলাস স্কুলের বেঁচে যাওয়া শিক্ষার্থীরা ‘আওয়ার লাইভস’ আন্দোলনের ঘোষণা দেয়।

আন্দোলনকারীরা আগামী ২৪ মার্চ ওয়াশিংটন অভিমুখে পদযাত্রা করার পরিকল্পনা করছে। ওইদিন যাতে অন্যান্য শহরে যুগপৎভাবে আন্দোলন চলে সেটিও নিশ্চিত করতে চাইছে তারা।
স্কুলটির একজন শিক্ষার্থী বলেছেন, এখানে আমরা মারা যাচ্ছি, আর বড়রা কিছুই করছে না।

রোববার বিক্ষোভকারীরা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও আইনপ্রণেতাদের উদ্দেশে ‘আপনাদের লজ্জিত হওয়া উচিত’ বলে স্লোগান দিতে থাকে।

বুধবারের ওই স্কুল হামলার পর বন্দুক নিয়ন্ত্রণ ইস্যুতে উল্টো ডেমোক্রেটদের ঘাড়েই দোষ চাপিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, ডেমোক্রেটরা যখন কংগ্রেসের নিয়ন্ত্রণে ছিল তখন কেন তারা ওই আইন পাস করেনি।

ট্রাম্প এসময় তদন্ত সংস্থা এফবিআইয়েরও সমালোচনা করেছেন। সন্দেহভাজন হামলাকারী নিকোলাস ক্রুজের সম্পর্কে তথ্য পাওয়ার পরও যথাযথ পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হওয়ার পর সংস্থাটিকে এক হাত নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

গেলো বছর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, তিনি ‘কখনও’ আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অধিকার হরণ করবেন না।
এদিকে ওই আন্দোলনকারীদের থেকে কিছুটা দূরেই একটি বন্দুক প্রদর্শনীর দর্শকরা বলছেন গণহত্যার জন্য আগ্নেয়াস্ত্রকে দায়ী করা ঠিক নয়।

১৪ ফেব্রুয়ারির মারজরি স্টোনম্যান ডগলাস হাইস্কুলে ওই হামলায় স্টাফসহ ১৭ জন শিক্ষার্থী নিহত হয়। এটি ২০১২ সালের পর স্কুলে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্দুক হামলার ঘটনা।

বিবিসি



মন্তব্য