ঢাকা - এপ্রিল ২৫, ২০১৮ : ১১ বৈশাখ, ১৪২৫

আইসিসি, নাকি শুধুই ছি ছি...!!!

নিউজ ডেস্ক
মার্চ ২১, ২০১৬ ০৩:৩০

আইসিসি, নাকি শুধুই ছি ছি..টি২০ বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। আর এরমাঝে নয় নম্বর মহাবিপদ সংকেত নিয়ে কালো মেঘে ছেয়ে গেছে দেশের ক্রিকেট অঙ্গনে। কারণ একটাই, অবৈধ বোলিং অ্যাকশনে জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে বাংলাদেশের দুজন বোলার তাসকিন আহমেদ এবং আরাফাত সানিকে। কোন যৌক্তিক কারণে নয়, বরং উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবেই এই ঘটনা ঘটিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেট মোড়ল আইসিসি ও আইসিসি’র কর্ণধার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড ‘বিসিসিআই’। এমনটাই বিশ্বাস ১৬ কোটি ক্রিকেট অনুরাগীর।


ক্রিকেট বিশ্বের অনেক বোলারকেই এই নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়তে হয়েছে। কিন্তু পরিসংখ্যান বলছে ভিন্ন কথা। বিশ্ব ক্রিকেটের তিন মোড়ল ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের কোন বোলারই সন্ধেহ জনক বল করেননি। তাঁদের প্রতিটি বোলারই ‘দুধে ধোয়া নিম পাতা’। এমনকি বর্তমান ভারতীয়দের আশার আলো ভুমরাও।


আইসিসি, নাকি শুধুই ছি ছি...!01গত বছর ধরে আইসিসি আর বিসিসিআই’র মাঝে পৃষ্ট হচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে দেখা গেছে আইসিসি’র এক চোখা স্বভাব। শুধু ২০১৫ সালের বিশ্বকাপই নয়। বাংলাদেশের উপর আইসিসি’র হানা সেই ২০০৭ বিশ্বকাপ থেকে। সেবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে স্পিনার আব্দুল রাজ্জাকের তাণ্ডবে জয়ের দৌড় গোড়ায় পৌছেযায় বাংলাদেশ। যদিও অল্পর জন্য ম্যাচ বাঁচাতে পারে প্রোট্রিয়ারা। তবে ওই ম্যাচে রাজ্জাকের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন উঠে। এরপর সোহাগ গাজী, আল-আমিন। সর্বশেষ সেই কাতারে উঠেছে সানি-তাসকিনের নাম। এই পাঁচ বাংলাদেশীদের সবারই মিল এক জায়গায়। দারুণ ফর্মের সময় প্রশ্ন উঠেছে তাঁদের বিরুদ্ধে।


এবারের টি২০ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের দারুণ সম্ভাবনা জেগে উঠে। বাছায় পর্বের ম্যাচে টাইগার বাহিনী দেখিয়েছে তাঁরই ঝলক। তাই বিষয়টি মোটেও ভালো লাগেনি মোড়লদের। তাইতো শক্তিশালী বোলিং লাইন-আপকে ভেঙ্গে দিয়েছে হিটলারি বুদ্ধিতে।


আইসিসি ও বিসিসিআই যদি মনে করে তাঁদের এই কুটোবুদ্ধির কাছে হেরে যাবে বাংলাদেশ। তা হবে হাস্যকর! বাঙ্গালী বীরের জাতি। যারা রক্ত দিয়েছে ভাষার জন্য। অন্যায় অবিচারের বিরুদ্ধে একাত্তরে হাতে তুলে নিয়েছে অস্ত্র। যারা কখনো অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেনি, আর করবেও না। চক্রান্তকারীরা মনে করছে তাসকিন-সানি দলে না থাকায় বিপদে পড়বে বাংলাদেশ। তাঁদেরকে জানিয়ে দিতে চায়, দলে জায়গা পাওয়া সাকলাইন সজিব-শুভাগত হোম হয়ে উঠতে পারে ‘শাপে বর’।


শামিম আহম্মেদ



মন্তব্য