ঢাকা - এপ্রিল ২৩, ২০১৮ : ৯ বৈশাখ, ১৪২৫

আইফোন ব্যবহারকারীদের জন্য সুবর্ণ সুযোগ!

নিউজ ডেস্ক
জানুয়ারি ০২, ২০১৮ ১৫:৪০

নতুন আইফোনের প্রতি ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে পুরনো মডেলের আইফোনের গতি কমানোর অভিযোগ উঠেছে অ্যাপলের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় ক্ষমা চেয়ে ব্যাটারির দাম কমানোর ঘোষণা দিয়েছে কোম্পানিটি। চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে একজন আইফোন ব্যবহারকারী সামাজিক মাধ্যম রেডিট-এ আইফোনের পারফর্মেন্স টেস্টশেয়ার করেন। এতে দেখা যায়, আইফোন ৬এস-এর পুরনো ব্যাটারি পরিবর্তনের সাথে সাথে ফোনের গতি বেড়ে যাচ্ছে।

রেডিট-এ ঘটনাটি শেয়ারের পর প্রযুক্তিবিষয়ক একটি ওয়েবসাইট ‘গিকবেঞ্চ' ভিন্ন ভিন্ন অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহাকারী কয়েকটি আইফোন বিশ্লেষণ করে দেখতে পায় যে, এর মধ্যে কয়েকটি ফোন প্রকৃত অর্থেই ইচ্ছে করে ধীরগতির করে দেয়া হয়েছে। এরপর সামাজিক মাধ্যমসহ অন্যান্য জায়গায় অ্যাপলের বিরুদ্ধে ইচ্ছাকৃতভাবে পুরনো আইফোনের গতি ধীর করার অভিযোগ ওঠে। এর প্রতিক্রিয়ায় ২০ ডিসেম্বর একটি বিবৃতি প্রকাশ করে অ্যাপল। এতে তারা স্বীকার করে যে, ব্যাটারি সমস্যা থাকা কয়েকটি ফোনের গতি তারা ধীর করে দিয়েছে।

আইফোন ৭-এর ক্যামেরায় ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়েছে, যোগ করা হয়েছে ৬টি এলমেন্টের সমন্বয়ে তৈরি লেন্স, যা আরো দ্রুত এবং উজ্জ্বল ছবি তুলতে সক্ষম। আর আইফোন ৭ প্লাসে পাশাপাশি দুটি ক্যামেরা থাকছে যাতে ওয়াইড অ্যাঙ্গেল এবং টেলিফোটো তোলা সহজ হয় এবং ছবির গভীরতা আরো পরিষ্কারভাবে বোঝা যায়। কারণ অ্যাপল বলছে, পুরনো লিথিয়াম ব্যাটারি ঠিকমতো পাওয়ার সরবরাহ করছিল না। এতে ফোনের ভেতরে থাকা গুরুত্বপূর্ণ সার্কিটগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা ছিল। এই পরিণতি থেকে ফোনগুলোকে রক্ষা করতে গতি কমানো হয়েছিল।

অ্যাপলের এ ধরনের বিবৃতিতে অনেক সাধারণ ক্রেতার মধ্যে এই বিশ্বাস জন্ম নেয় যে, নতুন আইফোনের প্রতি ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে পুরনো মডেলের আইফোনের গতি কমিয়ে দেয় অ্যাপল। এছাড়া ক্যালিফোর্নিয়া, নিউইয়র্ক ও ইলিনয়তে অ্যাপলের বিরুদ্ধে আটটি প্রতারণা মামলা দায়ের করা হয়েছে। ক্রেতাদের বিশ্বাস ফিরে পেতে বৃহস্পতিবার অ্যাপল আবারো একটি বিবৃতি প্রকাশ করে। এতে তারা বলে, ‘‘আমরা জানি, আপনারা অনেকে মনে করছেন অ্যাপল আপনাদের প্রতারিত করেছে। সেজন্য আমরা ক্ষমা চাই।'' তবে ইচ্ছে করে আইফোনের ক্ষমতা কমানোর অভিযোগটি প্রত্যাখ্যান করেছে অ্যাপল।

এছাড়া পুরনো ব্যাটারি পরিবর্তনের মূল্য কমানোরও ঘোষণা দিয়েছে অ্যাপল। ফলে আইফোন ৬ ও তার পরবর্তী মডেলের ক্রেতারা ৭৯ ডলারের পরিবর্তে ২৯ ডলার দিয়ে পুরনো ব্যাটারি পরিবর্তন করতে পারবেন। জানুয়ারির শেষ সপ্তাহ থেকে এটি শুরু হতে পারে। এছাড়া আইওএস অপারেটিং সিস্টেমেও আপডেট আনার কথা জানানো হয়েছে। ফলে এখন থেকে আইফোন ব্যবহারকারীদের তাদের ব্যাটারির কারণে আইফোনের গতি কমছে কিনা সে সম্পর্কে তথ্য জানানো হবে।

সূত্র : ডয়চে ভেলে



মন্তব্য