ঢাকা - এপ্রিল ২৩, ২০১৮ : ৯ বৈশাখ, ১৪২৫

যুক্তরাষ্ট্রের গোপন রহস্য ফাঁস করলেন সিঙ্গাপুরের বিশেষজ্ঞ

নিউজ ডেস্ক
ডিসেম্বর ৩১, ২০১৭ ১৩:১৬
<a href="http://bangladesh24online.com/wp-content/uploads/2017/12/The-Singapore-Merlion.jpg"><img class="wp-image-127199 alignleft" src="http://bangladesh24online.com/wp-content/uploads/2017/12/The-Singapore-Merlion.jpg" alt="" width="512" height="310" /></a>মার্কিন সরকারের সোনার মজুদ নিয়ে নানা সংশয় এবং সন্দেহ সৃষ্টি হয়েছে। সরকারি সোনার মজুদ কেউকে মার্কিন সরকার দেখতে না দেয়ায় এসব সন্দেহ ও সংশয় দেখা দিয়েছে। সিঙ্গাপুরের দামী ধাতু বিশেষজ্ঞ রোনান মানলি বলেছেন, মার্কিন সরকারের মজুদকৃত সোনা নিম্ন মানের বলেই মনে করা হয়।

মার্কিন সরকার দাবি করছে তার কাছে ৮১৩৩.৩ টন সোনা রয়েছে। এর ৫৮ শতাংশ রয়েছে কেনটুকির ফোর্ট নক্সে। নিউ ইয়র্ক রাজ্যের ওয়েস্ট পয়েন্টে রয়েছে ২০ শতাংশ, কলোরাডোর ডেনভারের মার্কিন টাকশালে রয়েছে ১৬ শতাংশ। এ ছাড়া, পাঁচ শতাংশ রয়েছে নিউ ইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক।

মানলি বলেন, মার্কিন স্বর্ণ মজুদকে কেন্দ্র করে গোটা বিষয়টি খুবই গোপনীয়তা মুড়ে রাখা হয়েছে।  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সোনার মজুদ দেখাশোনার দায়িত্বে রয়েছে মার্কিন টাকশাল ইউএস মিন্ট এবং ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউ ইয়র্ক। এই দুই সংস্থা কখনোই মার্কিন স্বর্ণ মজুদের পূর্ণাঙ্গ অডিট করার অনুমতি দেয়নি। এ ছাড়া, মজুদ স্বর্ণ বাইরের কেউকে কখনো দেখতে দেয়া হয়নি।

যে পরিমাণ স্বর্ণ মজুদের দাবি আমেরিকা করে আসছে প্রকৃতপক্ষে সে পরিমাণ সোনা হয়ত তাদের নেই। এ ছাড়া, আমেরিকার মজুদকৃত স্বর্ণের মানও খারাপ বলেই মনে করছেন মানলি। এ সব সোনা কখনোই আন্তর্জাতিক বাজারে বিক্রয় করতে পারবে না আমেরিকা। প্রধানত এ দুই কারণেই মার্কিন স্বর্ণ মজুদকে ঘিরে এমন ব্যাপক গোপনীয়তার বজায় রাখা হচ্ছে বলেও তিনি মনে করেন।


মন্তব্য