ঢাকা - ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৮ : ৫ ফাল্গুন, ১৪২৪

পেট থেকে বের করা হলো এক কেজি প্লাস্টিক ও কাঠ!

নিউজ ডেস্ক
নভেম্বর ১৫, ২০১৭ ১৫:৩০
অনেক মানুষেরই খাদ্য নয় এমন নানান বাজে জিনিস খাওয়ার বদ অভ্যাস রয়েছে। তবে এমনই এক বদ অভ্যাসে মৃত্যুর মুখে পড়ে গিয়েছিলেন পাঞ্জাবের ভাটিন্ডার ১৬ বছরের কিশোর অর্জুন শাহ। তার পেটে অস্ত্রোপচার করে হতভম্ব চিকিৎসকরা। কারণ অস্ত্রোপচারে তার পেট থেকে বের করা হয়েছে এক কেজি প্লাস্টিক ও কাঠ।

অর্জুনের ছোটবেলা থেকেই প্লাস্টিক চিবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস ছিল। কখনও আবার কাঠের টুকরাও কামড়ে খেতো। বাবা-মায়ের নিষেধ অমান্য করে লুকিয়ে এসব করতো সে। এভাবেই পেটের ভিতর একটু একটু করে জমতে থাকে এসব বস্তু। এরপর একসময় অসহ্য পেটব্যথার শুরু।

ব্যথা এতোটাই তীব্র হতে থাকে যে খাওয়া-দাওয়া বন্ধ হয়ে গিয়েছিল তার। শ্বাস নিতেও কষ্ট হচ্ছিল। এরপর নেওয়া হয় হাসপাতালে। সাত দিনে অর্জুনের ওজন প্রায় ১৫ কেজি কমে গিয়েছিল। কিন্তু চিকিৎসকরা বাইরে থেকে দেখে কিছুই বুঝতে পারছিলেন না। রোগ চিহ্নিত করতে অর্জুনের পাকস্থলিতে ক্যামেরা বসানো হয়। এরপর পেটের ভিতরের ছবি দেখে তাদের চোখ ছানাবড়া। কালো প্লাস্টিক ও কাঠের টুকরায় ভরে গেছে পাকস্থলি।

চিকিৎসকরা জানান, অর্জুনের রোগটি ‘পিকা’ নামে পরিচিত। এক্ষেত্রে কোনো ব্যক্তি বালি, পাউডার, নুড়িপাথর ও ময়লা ধরনের জিনিসপত্র খেতে আগ্রহী হয়। অস্ত্রোপচারে অর্জুনের পেট থেকে ৩০০ গ্রাম পদার্থ বের করতে পারা গেছে। আরও তিনটি অস্ত্রোপচার করলে পেটের সব ‘জঞ্জাল সাফ’ করা সম্ভব হবে।

সূত্র: ইন্ডিয়া টুডে


মন্তব্য