ঢাকা - মে ২২, ২০১৮ : ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫

আদ-দ্বীন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার নামে রোগীকে বেঁধে রাখার অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক
আগস্ট ১৭, ২০১৭ ২২:১০
০ বার পঠিত
আদ্-দ্বীন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার নামে এক রোগীকে বেঁধে রাখার অভিযোগ করেছেন স্বজনরা। Kazi Monir Hossain এর নাম দিয়ে কপি পোস্ট করে এটি শেয়ার করেছেন Masum Ahmed।

একটি ভিডিওতে দেখা যায়। একজন বারবার জানতে চাচ্ছেন, আমার রোগীকে কেন বেঁধে রাখা হয়েছে। এই প্রশ্ন শুনে হাসপাতালের স্টাফরা পালিয়ে যাচ্ছেন। ভিডিওতে পুলিশের সদস্য দেখা গেছে।

নিচে সেই পোস্টটি হুবহু দেওয়া হলো-

আদ-দ্বীন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার নামে হচ্ছেটা কি ?

দেশের হাসপাতাল গুলো কি মঘের মুল্লুকে পরিণীত হয়েছে ?

প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি !

ভিডিওটি সকলে শেয়ার করবেন ।।

#গত ১৪আগষ্ট ২০১৭- বিকেলে সুস্থ সবল আমার ছোট বোনের বাচ্চা হবে

তাই কারো সাহায্য ছাড়াই আদ্-দ্বীন হাসপাতালে যায় চেকআপের জন্য,

তারপর ডাঃ তাকে দেখে বলল কাল সকালে অপারেশন লাগবে,

রাজি হলাম আদ্-দ্বীন এর পূর্বের ভাল সেবার কথা মনে করে।

পরদিন ১৫আগষ্ট সাড়ে ১০টার দিকে তাকে অপারেশনে ঢুকানো হলো- ১ঘন্টা পর থেকে খোজ নিলেও- ওখান থেকে কেউ বলছে ও.টি চলছে আবার কেউ বলছে একটু পরে হবে- সিরিয়ালে আছে। ১২টা ১০এ বাচ্চা আমাদের হাতে দেয়া হলো, আমরা বাচ্চার মার কথা জানতে চাইলে বলে ভাল আছে। ২টার দিকে বারবার খোজ নেয়ার পর একসময় এসে বলে রুগির স্বামীকে ঢুকতে বলেন, দুর হতে দেখায়ে দিয়ে বলে রুগি অবজারভেশনে আছে সময় লাগবে। ৪টা ৫টার সময় যখন আমরা অস্থির হয়ে পরি তখন আমাকে একজন বলেন- রুগি এখন একটু ভাল আছে, আমার সন্দেহ হলে দেখতে চাই, কিন্তু দেখতে দেয়া হচ্ছ না আবার রুগির অসুবিধা হয় মনে করে বেশি কিছু বলিওনা। এভাবে বারবার জানতে চাওয়া হলে একজন এসে বলে রুগির কখন জ্ঞান ফিরবে বলা যাচ্ছেনা, দুই তিন দিনও লাগতে পারে। আমরা অস্থির হই এবং দেখতে চাই কিন্তু বারবার ঐ রোমে যাওয়া যাবেনা বলে বাধা দিচ্ছে বাধ্য হয়ে কমপ্লেইনের নাম্বার দিয়ে ফোন করে ঘটনার কথা জানালে ঐ ব্যবস্থাপক দৌড়ে এসে আমাদেরকে নিয়ে ভিতরে ঢুকে দেখি রুগির ৪হাতপা সিটের সাথে টাইট করে বাধা...

বেধে রাখার কথা জানতে চাইলে কেউ সদো্ত্তর দিতে পারেনি তবে একজন বলল- রুগি বারবার নরাচরা করে এজন্য-

আর কোনও ডাক্তার নাই, নার্সেরা যারযার মত করে গল্প করছে রুগির ব্যবস্থা নেয়া কোনো নজির নাই।

বলার পর বলছে- আমাদের ICU নাই, কিছুই করার নাই, আপনারা নিলে নিজের রিস্কে নিয়ে যান..



মন্তব্য