ঢাকা - এপ্রিল ২৫, ২০১৮ : ১১ বৈশাখ, ১৪২৫

ঢাকা-কলম্বোর সম্পর্কে নবযাত্রা, এ বছরই মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি

নিউজ ডেস্ক
জুলাই ১৫, ২০১৭ ১৭:১৪
বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা এ বছরই মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) করার বিষয়ে সম্মত হয়েছে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনার মধ্যে শুক্রবার আনুষ্ঠানিক আলোচনার পর দু’দেশ এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে। এই চুক্তির মাধ্যমে ঢাকা-কলম্বো সম্পর্ক এক নবদিগন্তের সূচনা করবে। এদিকে, দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক, বিনিয়োগ, বাণিজ্য, কৃষি, শিক্ষা ইত্যাদি বিষয়ে ১৪ চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে।

শুক্রবার দুই নেতার আনুষ্ঠানিক বৈঠক সম্পর্কে সাংবাদিকদের ব্রিফিং করেন, পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক এবং প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম।

এ সময় পররাষ্ট্র সচিব এম. শহীদুল হক জানান, প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৭ সালের মধ্যে মুক্তবাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) করতে সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন। তিনি বলেন, যত দ্রুত সম্ভব মুক্তবাণিজ্য চুক্তি করতে উভয় দেশ আলোচনা ও পর্যবেক্ষণ সম্পন্ন করার জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যা হবে কোনো দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের প্রথম এফটিএ চুক্তি।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে কারো মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি নেই। যদি ২০১৭ সালের মধ্যে এই এফটিএ সম্পন্ন হলে এটিই হবে কোন দেশের সঙ্গে প্রথম কোন মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি। এর মধ্যে দিয়ে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ এফটিএ এর অভিজ্ঞতা লাভ করতে যাচ্ছে।

এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র সচিব জানান, এফটিএ চুক্তিতে দুই দেশ লাভবান হবে। তবে বাংলাদেশ অনেক লাভবান হবে।
শ্রীলঙ্কান প্রেসিডেন্টের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে ব্যবসা বাণিজ্যের বিষয়টি বেশি গুরুত্ব পায় জানিয়ে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ১৪টি দলিল সই হয়েছে। যার মধ্যে ৭টি বাণিজ্য ও ব্যবসা কেন্দ্রিক। তিনি বলেন, বাংলাদেশের কৃষিক্ষেত্রের সাফল্য বিশেষ করে বীজ উৎপাদনে বিপ্লব সাধনের বিষয়ে শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট এর নেপথ্য কথা জানার আগ্রহ ব্যাক্ত করেন।

সফর বিষয়ে শ্রীলঙ্কান প্রেসিডেন্টের বক্তব্য তুলে ধরে শহীদুল হক বলেন, প্রেসিডেন্ট এ সফরকে ঐতিহাসিক হিসেবে উল্লেখ করেছেন। এর মাধ্যমে দুই দেশের সর্ম্পকের একটা নবযাত্রা শুরু হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট তিনদিনের সফরে বৃহস্পতিবার ঢাকায় এসে পৌঁছান। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানান রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ। এই সফরে প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা থাকছেন ঢাকার সোনারগাঁও হোটেলে। তার সফর উপলক্ষে রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক সাজানো হয়েছে বর্ণিল সাজে। আজ শনিবার ঢাকা ছাড়বেন শ্রীলঙ্কান প্রেসিডেন্ট। বিমানবন্দরে তাকে বিদায় জানাবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।


মন্তব্য