ঢাকা - এপ্রিল ২৫, ২০১৮ : ১১ বৈশাখ, ১৪২৫

অচল হাত-পা নিয়েই পাহাড় কেটে রাস্তা বানালেন ৫৯ বছরের বৃদ্ধ!

নিউজ ডেস্ক
জানুয়ারি ১২, ২০১৭ ১৭:২৪
ভারতের কেরালার তিরুঅনন্তপুরমের আধা পঙ্গু বৃদ্ধ শশী জি একাই একটা পাহাড় কাটার কাজ শেষ করে ফেলেছেন। তিন বছর ধরে প্রতিদিন ৬ ঘণ্টা শাবল, কোদাল, গাঁইতি নিয়ে এক হাতের ভরসায় একটু একটু করে কাটার পর শেষমেশ সেই পাহাড় কেটেই রাস্তা বের করেছেন তিনি। তার একটা হাত ও পা একেবারেই অচল। বড়সড় ওই পাহাড় কাটতে তাই মূলত বাম হাতটাই ছিল তার ভরসা। তার অন্য হাতটা কর্মক্ষম নয়। কাজ করা তো দূরের কথা, ওই হাতটি ভালো করে নাড়তেও পারেন না। ঠিক যেমন ডান পা-টাও কাজ করে না। তাই হাঁটতেও পারেন না ঠিক করে।

পক্ষাঘাতগ্রস্ত শরীর নিয়ে দিনের পর দিন তিনি কেটে গেছেন পাহাড়। কারণ, তার বাড়ি পর্যন্ত একটা রাস্তা চাই। সেই রাস্তাই তাকে এনে দিতে পারে একটা তিন চাকার গাড়ি। যে গাড়ি ঘুরিয়ে দেবে তার ভাগ্যের চাকা। রাস্তার কাজ এখন প্রায় শেষ। আপাতত পরের অংশটুকু নিয়েই আশায় বুক বেঁধেছেন ওই বৃদ্ধ। এখন তার বয়স ৫৯। এক সময় নারকেল গাছ বেয়ে তরতর করে উঠে যেতেন। কিন্তু, ১৮ বছর আগে হঠাৎ এক দিন সকালে কাজ করতে গিয়ে লম্বা এক নারকেল গাছ থেকে পড়ে গেলেন। আর খোয়ালেন একটি হাত ও পায়ের সক্ষমতা।

শশী জির কথায়, ‘প্রথম দিকে পাড়ার লোকজন হেসেছে। তবুও দমে যাইনি। আমি শুধু রাস্তা কেটে গেছি। কারণ, সবাই ভেবেছিল আমি পারব না। নিজেকে নিজের কাছেই প্রমাণ করার প্রয়োজন ছিল। তা ছাড়া এটা আমার ফিজিওথেরাপির কাজও করত। পঞ্চায়েত আমাকে গাড়ি দেয়নি। আমি গ্রামবাসীকে একটা রাস্তা তো দিতে পারলাম। সেটাই বা কম কিসের।’

সূত্রঃ এনডিটিভি


মন্তব্য