ঢাকা - ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৮ : ১০ ফাল্গুন, ১৪২৪

লাল-সবুজের মহাকাব্যিক নাম বাংলাদেশে বিজয়ের ৪৫ বছর পূর্ণ

নিউজ ডেস্ক
ডিসেম্বর ১৬, ২০১৬ ১৭:২৬

victory-day-cover-photoত্রিশ লাখ শহীদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত মহাকাব্যিক নাম বাংলাদেশে বিজয়ের ৪৫ বছর পূর্ণ হল আজ। মহান বিজয় দিবসে জাতি শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছে একাত্তরে শহীদদের। ভোরের আলো না ফুটতেই হাজারো মানুষের স্রোত গিয়ে মেশে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে।


শুক্রবার ভোর ৬টা ৩৯ মিনিটে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল শহীদদের রাষ্ট্রীয় অভিবাদন জানান। বিউগলে বেজে ওঠে করুণ সুর। রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী সেখানে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। পরে তারা শোক বইয়ে স্বাক্ষর করেন। তাদের পর শ্রদ্ধা জানান জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়া।


এরপর স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গনে ঢল নামে সবস্তরের মানুষের। ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক-রাজনৈতিক সংগঠন। জাতীয় স্মৃতিসৌধসহ সারা দেশে স্মৃতির মিনারগুলো আজ ফুলে ফুলে ছেয়ে গেছে। জাতি শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় গাইছে মুক্তির জয়গান। ৪৫ তম বিজয় দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেত্রী রওশন এরশাদ, বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া, সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বাণী দিয়েছেন। পৃথক বাণীতে তারা স্বাধীনতা যুদ্ধে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারকারী মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বশ্রেষ্ঠ সন্তান বলে আখ্যায়িত করেছেন।


জাতি আজ শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের মহানায়ক ও স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ধানমণ্ডির ঐতিহাসিক ৩২ নম্বরে তার প্রতিকৃতির সামনে দাঁড়িয়ে নতুন করে শপথ নেন নতুন প্রজন্মের লাখ মানুষ। গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় তার মাজারেও শ্রদ্ধা জানান লাখ মানুষ। কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করা হয় মহান মুক্তিযুদ্ধে সহায়তাকারী বন্ধু রাষ্ট্র ভারতকে। দেশটি ওই সময় এক কোটি মানুষকে আশ্রয়, মুক্তিযোদ্ধাদের ট্রেনিং আর সাহস জুগিয়েছিল। সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নসহ (রাশিয়া) অন্য বন্ধু রাষ্ট্র ও ব্যক্তির অবদানের কথা স্মরণ করা হয় নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে।


dএদিকে, একে একে ছয় শীর্ষ ঘাতকের ফাঁসির রায় কার্যকর হওয়ায় এবারের বিজয় দিবস ভিন্ন মাত্রায় উদযাপিত হচ্ছে। সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে একে একে দুর্ধর্ষ ঘাতক, মিরপুরের কসাই নামে পরিচত জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আবদুল কাদের মোল্লা, যুদ্ধাপরাধী কামারুজ্জামান, আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ, সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরী, মতিউর রহমান নিজামী ও মীর কাশেম আলীর ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। জাতি ঘাতক এটিএম আজহার, মাওলানা আবদুস সোবহানের ফাঁসি কার্যকরের অপেক্ষায় রয়েছে।


বিজয় দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে জাতীয় সংবাদপত্রগুলো প্রকাশ করেছে বিশেষ ক্রোড়পত্র। বাংলাদেশ বেতার, বিটিভি, বেসরকারি টেলিভিশনে সম্প্রচার করা হচ্ছে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা। যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদযাপনের জন্য দেশের প্রধান প্রধান রাজনৈতিক দলসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিনটি উদযাপন করছে।


বাংলাদেশ২৪অনলাইন/টিএম



মন্তব্য